প্রচন্ড গরম এবং হিটওয়েভে কিভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন। শীতল থাকার ১০টি উপায়

প্রচন্ড গরম এবং হিটওয়েভে কিভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন। শীতল থাকার ১০টি উপায়

প্রচন্ড গরম এবং হিটওয়েভে কিভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন
প্রচন্ড গরম এবং হিটওয়েভে কিভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন

জ্বলন্ত সূর্য যখন নিচে নেমে যায়, এবং তাপমাত্রা বেড়ে যায়, গ্রীষ্মের তাপপ্রবাহের সময় শীতল এবং আরামদায়ক থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। যদিও তাপ নিরলস হতে পারে, এটিকে পরাস্ত করার এবং নিজেকে ভালো রাখার জন্য প্রচুর উপায় রয়েছে। সাধারণ লাইফস্টাইল অ্যাডজাস্টমেন্ট থেকে রিফ্রেশিং হ্যাক পর্যন্ত, এখানে ১০ টি টিপস রয়েছে যা আপনাকে তাপকে কমিয়ে এবং গ্রীষ্মের ঋতুতে আপনাকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করবে।

প্রচন্ড গরম এবং হিটওয়েভে কিভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন। শীতল থাকার ১০টি উপায়

১। হাইড্রেটেড থাকুন:

তাপপ্রবাহের সময় ঠান্ডা থাকার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল হাইড্রেটেড থাকা। ডিহাইড্রেশন প্রতিরোধে সারাদিন প্রচুর পানি পান করুন। ইলেক্ট্রোলাইটগুলি পুনরায় পূরণ করতে এবং আপনার শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রিত রাখতে বরফযুক্ত জল, লেবুপানি বা নারকেল জলের মতো শীতল পানীয় বেছে নিন। এছাড়াও বেছে নিতে পারেন শরবত এবং স্মুদি। মনমুগ্ধকর শীতল কিছু শরবত রেসিপি পেতে এখানে ক্লিক করুন।

২। উপযুক্ত পোশাক পরুন:

তুলা বা লিনেনের মতো প্রাকৃতিক কাপড় থেকে তৈরি হালকা ওজনের, শ্বাস নিতে পারে এমন পোশাক পরুন। হালকা রং সূর্যালোককে প্রতিফলিত করে, যখন গাঢ় রং তাপ শোষণ করে, তাই ঠান্ডা থাকার জন্য হালকা রঙের পোশাক বেছে নিন। ঢিলেঢালা পোশাক আপনার শরীরের চারপাশে বায়ু সঞ্চালন করতে দেয়, ঘামের বাষ্পীভবনে সহায়তা করে এবং আপনাকে আরামদায়ক রাখে।

৩। ছায়া খোঁজা:

যখন বাইরে থাকবেন, সরাসরি সূর্যালোক এড়াতে যখনই সম্ভব ছায়া খুঁজুন। ছায়া উল্লেখযোগ্যভাবে পরিবেষ্টিত তাপমাত্রা কমাতে পারে এবং তাপ থেকে ত্রাণ প্রদান করতে পারে। ছায়াযুক্ত এলাকা তৈরি করতে ছাতা, ছাউনি বা গাছ ব্যবহার করুন, বিশেষ করে দিনের উষ্ণতম সময়ে।

৪। ফ্যান এবং এয়ার কন্ডিশনার ব্যবহার করুন:

ঘরকে ঠান্ডা করতে পাখা বা এয়ার কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। সিলিং ফ্যান বা টেবিল ফ্যান দিয়ে ঘরকে ঠান্ডা করে নিন। আপনার যদি এয়ার কন্ডিশনার থাকে তবে আপনার বাড়ির মধ্যে একটি শীতল পরিবেশ তৈরি করতে এটি একটি আরামদায়ক তাপমাত্রায় সেট করুন।

৫। ঠান্ডা ঝরনা বা গোসল করুন:

একটি রিফ্রেশিং ঝরনা বা গোসল করে দ্রুত শীতল করুন। উষ্ণ বা ঠান্ডা জল আপনার শরীরের তাপমাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে এবং তাপ থেকে তাত্ক্ষণিক মুক্তি প্রদান করতে পারে। উপরন্তু, পেপারমিন্ট বা ইউক্যালিপটাস-ইনফিউজড শাওয়ার পণ্যগুলি ব্যবহার করে আপনার ইন্দ্রিয়গুলিকে চাঙ্গা করতে পারেন এবং শরীরকে শীতল করতে পারেন।

৬। হালকা এবং সতেজ খাবার খান:

হালকা, সতেজ খাবারের জন্য বেছে নিন যা আপনাকে গরমে ভারাক্রান্ত করবে না। তরমুজ, শসা এবং বেরি-এর মতো মৌসুমি ফল উপভোগ করুন, যেগুলিতে জলের পরিমাণ বেশি এবং আপনাকে হাইড্রেটেড রাখতে সাহায্য করে। স্যালাড, স্মুদি এবং ঠাণ্ডা স্যুপগুলি আপনার শরীরকে ঠান্ডা থাকার জন্য দুর্দান্ত বিকল্প।

৭। বাহিরের কার্যকলাপ সীমিত করুন:

প্রচণ্ড গরমের সময়, অতিরিক্ত গরম এবং ক্লান্তি এড়াতে বাহিরের কাজগুলোকে সীমিত করুন, বিশেষ করে হিটওয়েভের সময় গুলোতে। দিনের শীতল সময়ে আউটডোর সকল কাজ বা বিনোদনমূলক কার্যকলাপের সময়সূচী করুন, যেমন সকাল বা সন্ধ্যা। যদি বাইরের কাজ খুবই অনিবার্য হয় তবে ছায়াযুক্ত জায়গায় ঘন ঘন বিরতি নিন এবং হাইড্রেটেড থাকুন।

৮। কুলিং আনুষাঙ্গিক ব্যবহার করুন:

যেতে যেতে ঠান্ডা থাকার জন্য আইস প্যাক, হাত পাখা, কুলিং তোয়ালে বা গলায় মোড়ানোর মতো শীতল জিনিসপত্রগুলিতে সাথে রাখুন। এই আইটেমগুলি ত্বকের তাপমাত্রা কমিয়ে তাত্ক্ষণিক আরাম দান করবে এবং বাহিরে থাকাকালিন সময়ে কার্যকলাপের সময় বা গরম আবহাওয়ায় যাতায়াতের সময় বিশেষভাবে উপযোগী হতে পারে।

৯। আপনার থাকার জায়গা ঠান্ডা রাখুন:

আপনার থাকার জায়গা ঠান্ডা এবং আরামদায়ক রাখতে পদক্ষেপ নিন। সূর্যালোক আটকাতে এবং আপনার বাড়িতে তাপ প্রবেশ রোধ করতে দিনের বেলা ভারি পর্দা দিন। তাপ স্থানান্তর কমাতে ইনসুলেটেড উইন্ডো ট্রিটমেন্ট বা রিফ্লেক্টিভ উইন্ডো ফিল্ম ব্যবহার করুন। উপরন্তু, ঘরের আর্দ্রতার মাত্রা কমাতে এবং আরাম বাড়াতে একটি হিউমিডিফায়ার ব্যবহার করার কথা বিবেচনা করুন।

১০। স্ট্রেস এবং উদ্বেগ কমান:

শেষ অবধি, তাপপ্রবাহের সময় শান্ত এবং কেন্দ্রীভূত থাকার জন্য মননশীলতা এবং শিথিলকরণ কৌশলগুলি অনুশীলন করুন। স্ট্রেস এবং উদ্বেগ তাপের প্রভাবকে আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে, তাই মানসিক চাপ থেকে মুক্তি পেতে সময় নিন। শিথিলতা বাড়াতে এবং একটি ইতিবাচক মানসিকতা বজায় রাখতে নিয়মিত প্রার্থনা, গভীর শ্বাসের ব্যায়াম করার চেষ্টা করুন।

উপসংহার:

এই ১০ টি টিপসের সাহায্যে, আপনি গ্রীষ্মের তাপপ্রবাহকে কিছুটা পরাস্ত করতে পারেন এবং শীতল এবং আরামদায়ক থাকতে পারেন। হাইড্রেটেড থাকার মাধ্যমে, যথাযথভাবে পোশাক পরে, ছায়া খোঁজার এবং শীতল করার কৌশলগুলি ব্যবহার করে, আপনি আপনার শরীর এবং মনকে ভালো রাখার পাশাপাশি গ্রীষ্ম উপভোগ করতে পারেন। এই অভ্যাসগুলিকে আলিঙ্গন করুন এবং প্রতিটি রৌদ্রোজ্জ্বল দিনের সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করুন!

তবে মনে রাখবেন, অতিরিক্ত গরম হলো জাহান্নামের নিশ্বাস। নবীজি বলেছেন,

“যখন গরম বেশি পড়বে, তখন বেশি নামাজ আদায় কর। কারণ অতিরিক্ত গরম হলো জাহান্নামের নিশ্বাস”। (মিশকাত-৫৯১)

আল্লাহর ক্রোধ থেকে বাঁচার জন্য রাসুল (সা.) আমাদের বিভিন্ন দোয়া শিখিয়েছেন। নিচে এমনই গুরুত্বপূর্ণ একটি দোয়া দেওয়া হলো।

اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنْ زَوَالِ نِعْمَتِكَ وَتَحَوُّلِ عَافِيَتِكَ وَفُجَاءَةِ نِقْمَتِكَ وَجَمِيعِ سَخَطِكَ

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিন জাওয়ালি নি’মাতিকা ওয়া তাহবিলি আফিয়াতিকা ওয়া ফুজাআতি নিকমাতিকা ওয়া জামি’য়ি সাখাতিকা।

অর্থ: হে আল্লাহ, আমি আপনার কাছে আশ্রয় চাই আপনার নিয়ামতের বিলুপ্তি, আপনার অনুকম্পার পরিবর্তন, আকস্মিক শাস্তি এবং আপনার সমস্ত ক্রোধ থেকে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Share the Post:

Related Posts

তৈলাক্ত ত্বক

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকার কিছু খাবার গোপনে আপনার ত্বককে করছে তৈলাক্ত। জেনে নিন কি খাবেন কি খাবেন না। OILY SKIN DIET

আপনি তাই যা আপনি খাচ্ছেন। আপনি যে খাবার খান তা আপনার ত্বকের অবস্থা, বিশেষ করে তৈলাক্ত ত্বকের উপর ব্যাপক প্রভাব

Read More
error: Content is protected !!
X
Change